Apparels & Fashion, Sports & Accessories

চামড়ার জুতা যত্ন নেওয়ার কৌশল

চামড়ার জুতা

চামড়ার জুতা হাল ফ্যাশনের সাথে তাল মিলিয়ে বিভিন্ন ডিজাইন, কালারে বের হচ্ছে প্রতিনিয়ত। জুতা যেহেতু পায়ে দেওয়ার বস্তু সেহেতু চলাফেরা, হাঁটাহাটি করার ফলে তাতে ধুলাবালি লাগবেই। এটি পায়ের সুরক্ষা দিয়ে থাকে, তাই জুতার যত্ন নেওয়া দরকার হয়। ধুলাবালি, ময়লা লেগে জুতার সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায়। ফলে তা পুরাতন রূপ পায়। তখন সেই জুতা পরে বাইরে বের হওয়া এক লজ্জাজনক পরিস্থিতি।

লজ্জায় পড়তে হবে না আর। কিছু কৌশল প্রয়োগ করে চামড়ার জুতা পরিষ্কার করলে তা একদম নতুন এর মতো চকচকে হয়ে উঠবে। সেরকম কিছু কৌশল এখানে বলা হবে।

চামড়ার জুতা যত্ন নেওয়ার কৌশল

একাধিক রকমের জুতা বাজারে পাওয়া যায় যা চামড়া দিয়ে তৈরি। জেনুইন বা একদম খাঁটি চামড়া দিয়ে তৈরি , সুয়েড, ও প্যাটেন্ট ইত্যাদি হচ্ছে চামড়ার জুতার ধরণ।

সব ধরণের জুতার যত্ন নিতে সঠিকভাবে পরিষ্কার করা, পালিশ করা জরুরি। তা না হলে এত দামে কেনা বস্তু সহজে ক্ষয় হয়ে, রঙ হারিয়ে অল্পদিনেই নষ্ট হয়ে যাওয়ার পর্যায়ে চলে যায়।

আপনি আলাউল ডটকম থেকে পাবেন ভালো মানের জুতা, বিশ্ব বিখ্যাত ব্র্যান্ড নাইকি, অ্যাডিডাস, টপটেক্স এর মতো কোম্পানির পণ্য। কম দামে বিখ্যাত ব্র্যান্ডের আকর্ষণীয় শুজ, কেডস নিতে যান – https://www.alaul.com/product-category/apparels-fashion/

https://www.alaul.com/product-category/apparels-fashion/fashion/footware/

যেভাবে চামড়ার জুতা্র যত্ন নিবেন –

  • শুরুতেই পানি ছিটিয়ে দিবেন না জুতোয়। প্রথমে ফিতা খুলে নিবেন।
  • তারপর কোনো কাপড় অথবা ব্রাশ দিয়ে ঘষে জুতোয় লেগে থাকা ধুলাবালি, ময়লা বের করতে হবে।
  • তারপর গায়ে মাখার পাউডার অথবা ব্যাকিং পাউডার জুতোয় ছিটিয়ে নিন অল্প পরিমাণে।
  • ভিনেগার পানিতে মিশিয়ে তারপর আবার পরিষ্কার ব্রাশ দিয়ে ঘষুন উপরে ও পাশে।
  • চাইলে পাউডার ব্যবহার করতে না-ও পারেন। জুতো যদি বেশি শক্ত চামড়ার হয় তাহলে পাউডার ব্যবহার করলে ভালোভাবে পরিষ্কার হবে।
  • সাদা রঙের শুজ এর বেলায় হালকা সাবান লাগিয়ে ঘষে নিলে আরও ধবধবে সাদা হবে।
  • তলায় লেগে ময়লা, কাঁদা, গাম অপসারণ করতে সূঁচালো মাথার কোনো বস্তু যেমন কাঠ, কাঠি ব্যবহার করুন। ময়লা অপসারণের পর তলার অংশও সামান্য পানি দিয়ে মুছে নিতে পারেন।
  • ফিতায় যদি ময়লা থাকে, তাহলে পানিতে সাবান অথবা একটু ডিটারজেন্ট পাউডার মিশিয়ে ফিতা কিছুক্ষণ চুবিয়ে তারপর শুকাতে দিয়ে রাখুন।

আরও একটি কৌশলে পরিষ্কার করা যায়, সেটা হলো –

মোটা বা পুরো টিস্যুতে পানি নিয়ে চিপে টিস্যু থেকে পানি ফেলে নিবেন। তারপর সেই আধ ভেজা টিস্যু দিয়ে উপরের অংশ ভালোভাবে ঘষে মুছে পরিষ্কার করবেন। সোল পরিষ্কার করার জন্যও টিস্যু ব্যবহার করতে পারেন, অথবা পানি শোষণ করে বেশি এমন স্পঞ্জ ব্যবহার করবেন। টিস্যুতে একটু সাবান লাগিয়ে নিয়েও মুছতে পারেন তাতে জীবাণুও দূর হবে।

সতর্কতার জন্য সুয়েড চামড়ার জুতোয় পানি লাগাবেন না। সুয়েড এর জন্য পেন্সিলের রাবার ব্যবহার করে ঘষে নিলে বেশি ভালো। এছাড়া বাজারে পালিশ করার জন্য ব্রাশ পাওয়া যায়, সেই ব্রাশ দিয়ে সুয়েড এর শুজ পরিষ্কার করতে পারেন।

ঘষামাজা, ময়লা পরিষ্কার করা শেষ হলে রোদে শুকাতে দিয়ে রাখুন কয়েক মিনিট। তারপর নরম কাপড় দিয়ে জুতা আবার মুছে নিবেন।

সবশেষে পালিশ করার সুযোগ থাকলে তখনই পালিশ করে নিয়ে তারপর পরা শুরু করুন। পালিশ করলেই তা দেখতে বেশি চকচকে, ঝকঝকে, টেকসই হয়।

জুতোয় কোনো প্রকারের স্প্রে করা উচিত নয়। তাই স্প্রে করা এড়িয়ে চলুন।

ভিনেগার আর পানিই সবচেয়ে ভালো উপায় চামড়ার জুতার যত্ন নিতে। এতে তা নতুন রূপে ফিরে আসে। অন্য উপকরণ গুলো হচ্ছে ভিনেগার ও পানির বিকল্প হিসেবে। এই কৌশল গুলো প্রয়োগ করলেই আপনার শখের ও পছন্দের জুতোজোড়া হয়ে উঠবে নতুন এর মতোই।

Back to list

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *